আজমিরীগঞ্জে নিরাপত্তা প্রহরীর বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

প্রকাশিত: ৯:০৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৪, ২০২১

আজমিরীগঞ্জে নিরাপত্তা প্রহরীর বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগ

আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি
আজমিরীগঞ্জ উপজেলার ৪নং কাকাইলছেও ইউনিয়নের সরকারি খাদ্যগুদামের ৬টি গাছ ধাপে ধাপে কেটে বিক্রি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারি অনুমতি ব্যতি রেখে ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের চোখ ফাঁকি দিয়ে এসব গাছ কর্তন ও বিক্রি করা হয়েছে মর্মে অভিযোগ স্থানীয়দের। তাদের দাবি, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা খাদ্য গুদামের নিরাপত্তা প্রহরী ফরহাদ মিয়া কারও বিনা অনুমতিতে এসব গাছ কর্তন করে বিক্রি করে সরকারি টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

 

সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, কাকাইলছেও খাদ্য গুদামের বাউন্ডারি ওয়ালের ভিতরে প্রায় ৬টি গাছ কেটে বিক্রি করা হয়েছে। বিগত ৩ মাসে কয়েক ধাপে গাছগুলি কাটা হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে, বিনা অনুমতিতে সরকারি গাছ কেটে বিক্রি করায় এলাকায় তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

 

কাকাইলছেও খাদ্যগুদাম সংলগ্ন স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বিগত ৪ মাস যাবৎ আজমিরীগঞ্জ উপজেলা খাদ্য গুদামের নিরাপত্তা প্রহরী ফরহাদ মিয়া কাকাইলছেও খাদ্যগুদাম সংলগ্ন সরকারি কোয়ার্টারে বসবাস করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় সে খুবই চতুরতার সাথে কয়েক ধাপে গুদামের কাঠ জাতীয় গাছগুলি কর্তন করে বিক্রি করেছে। প্রথম ধাপে কর্তন করা কিছু গাছের গুড়ি আবার মাটি দিয়ে ঢেকে রাখে। ৯-১০ দিন আগে সর্বশেষ ২টি গাছ কেটে বিক্রি করে ফরহাদ। সে বর্তমানে ছুটিতে আছে।

 

এ ব্যাপারে উপজেলা খাদ্যগুদামের নিরাপত্তা প্রহরী ফরহাদ মিয়ার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

 

বিনা অনুমতিতে সরকারি সম্পদ (গাছ) একজন নিরাপত্তা প্রহরী কিভাবে বিক্রি করতে পারে জানতে চাইলে আজমিরীগঞ্জ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম দৈনিক বিজয়ের কন্ঠকে বলেন, বিষয়টি আমি জানি, আগামীকাল জেলা থেকে আগত উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে কাকাইলছেও খাদ্য গুদাম সরজমিন ভিজিট করবো, তারপর যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে যে বা যারা এই বে-আইনী কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

সর্বশেষ ২৪ খবর