আজ খুলছে না নগরের ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ সব মার্কেট

প্রকাশিত: ১:০৪ পূর্বাহ্ণ, জুন ১০, ২০২১

আজ খুলছে না নগরের ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ সব মার্কেট

নিজস্ব প্রতিবেদক
হিসেব অনুযায়ী ভূমিকম্প সচেতনতায় সিসিকের বেধে দেওয়া ১০ দিন শেষ হয়েছে বুধবার। সে অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার থেকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা ২৪ ভবন ও মার্কেট খোলার কথা। কিন্তু তা আর হচ্ছে না। সোমবার (৭ জুন) সন্ধ্যায় দুই দফা ভূমিকম্পে সে হিসেব পাল্টে এখন নতুন করে ভাবতে বাধ্য করেছে কর্তৃপক্ষকে। তাই পরীক্ষা ছাড়া খোলার অনুমতি দিতে পারছে না সিসিক।

 

এ বিষয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা সকল ভবন সংশ্লিষ্ট সকলকে চিঠি দিয়েছি। তাদের জানানো হয়েছে বিশেষজ্ঞ দিয়ে পরীক্ষা করে সে প্রতিবেদন আমাদের কাছে জমা দিতে। তাঁর পর আমাদের বিশেষজ্ঞ টিম এটির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিবেন। কিন্তু পরীক্ষা ছাড়া কোন ভাবেই ঝুঁকিপূর্ণ এসব মার্কেট বা ভবন ব্যবহার করতে পারবেন না।’

 

এর আগে গত ২৯ মে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় ভূমিকম্পে কেঁপে উঠে সিলেট নগর।বার বার ভূমিকম্পে নড়েচড়ে বসেন নগর কর্তৃপক্ষ। আলোচনায় আসে সিলেটে শত বছর আগের ভয়াবহ ভূমিকম্পের কথা। তাই এবারও বড় ভূমিকম্পের পূর্বে ছোট ছোট এসব ভূমিকম্পকে সতর্কবার্তা হিসেবে পরবর্তী দশ দিন সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন বিশেষজ্ঞরা। তাই পরদিন ৩০ মে সিলেট নগরে ২৪ টি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন চিহ্নিত করে ১০ দিন বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু নে নির্দেশনা দিলেও বাঁধ সাধে ৭ জুনের দুই দফা ভূমিকম্প। অবশ্য এসব ভবন ২০১৯ সাল থেকেই ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চলে আসলেও এবার ভূমিকম্পের ঝুঁকি থাকায় তা বন্ধ করা হলো।

 

নগরজুড়ে চিহ্নিত করা ২৪টি ভবনের মধ্যে সিটি সুপার মার্কেট, মধুবন সুপার মার্কেট, মিতালী ম্যানশন, সমবায় ভবন, রাজা ম্যানশন, সুরমা মার্কেট এবং জেমস গ্যালারি ভবন রয়েছে। এগুলো নগরীর প্রাচীনতম মার্কেট হিসেবেই পরিচিত।

 

এর সাথে আরও যেসব ভবনের নাম রয়েছে সেগুলো হলো- জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের উত্তর পাশের কালেক্টরেট ভবন-৩, জেলরোডস্থ সমবায় ব্যাংক ভবন, একই এলাকায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার সাবেক কার্যালয় ভবন, দরগাগেইটের হোটেল আজমীর, টিলাগড় কালাশীলের মান্নান ভিউ, নগরের শেখঘাট এলাকায় শুভেচ্ছা-২২৬ নম্বর ভবন, যতরপুরের নবপুষ্প ২৬/এ বাসা, চৌকিদেখির ৫১/৩ সরকার ভবন, পুরানলেনের ৪/এ কিবরিয়া লজ, খারপাড়ার মিতালী-৭৪, মির্জাজাঙ্গাল মেঘনা এ-৩৯/২, পাঠানটুলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর বাগবাড়ির একতা ৩৭৭/৭ ওয়ারিছ মঞ্জিল, একই এলাকার একতা ৩৭৭/৮ হোসেইন মঞ্জিল, একতা-৩৭৭/৯ শাহনাজ রিয়াজ ভিলা, বনকলাপাড়া নূরানি-১৪, ধোপাদিঘীর দক্ষিণ পাড়ের পৌরবিপণী মার্কেট ও ধোপাদিঘীরপাড়ের পৌর শপিং সেন্টার।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর