কোম্পানীগঞ্জে ইন্তাজ আলীর খুনীরা অধরা : নিরাপত্তাহীন পরিবার

প্রকাশিত: ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২১

কোম্পানীগঞ্জে ইন্তাজ আলীর খুনীরা অধরা : নিরাপত্তাহীন পরিবার

কোম্পানীগঞ্জ সংবাদদাতা
কোম্পানীগঞ্জে ইন্তাজ আলীর প্রধান খুনী গোলাম রব্বানী বেড়াই প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অন্য আসামিদের নিয়ে নিহতের পরিবার পরিজনকে নান হুমকি ধমকি দিচ্ছে। ফলে স্বামী হারিয়ে বিধবা রোজিনা বেগম ও তার পরিবার চরম নিরপত্তাহীনতায় ভুগছেন। থানা পুলিশের সাথে গোলাম রব্বানী বেড়াইয়ের রয়েছে গভীর সখ্যতা। তাই ইন্তাজ আলী খুনের অন্যতম প্রধান আসামি হয়েও গ্রেপ্তার এড়িয়ে মামলার বাদী রোজিনাকে নানাভাবে হুমকি ধমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

জানা গেছে-গত ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রকাশ্য দিবালোকে নির্মম এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। একটি সালিশ বৈঠকে কথা কাটাকাটির জের ধরে এলাকার ভোপলাগঞ্জ আদর্শ গ্রামের আরজ আলী, পুরান ভোলাগঞ্জের গোলাম রব্বানী বেড়াইসহ কয়েকজন মিলে ইন্তাজ আলীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ও পিটিয়ে খুন করে। তখন এলাকাবাসী ধাওয়া করে আরজ আলীকে আটক করে পুলিশে দেয়। এসময় ঘাতক গোলাম রব্বানীসহ অন্যান্য খুনীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নিহত ইন্তাজ আলীর স্ত্রী রোজিনা বেগম বাদী হয়ে ৬ জনকে এজাহারভুক্ত করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা {নং-১৯(২)২০২১} দায়ের করেন।

 

মামলার আসামিরা হচ্ছে- কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ আদর্শ গ্রামের মৃত করামত আলীর পুত্র আরজ আলী, পুরাণ ভোলাগঞ্জ গ্রামের মৃত ইসহাক আলীর পুত্র গোলাম রব্বানী বেড়াই, গোলাম রব্বানী বেড়াইয়ের পুত্র ইলিয়াছ মিয়া, ভোলাগঞ্জ আদর্শ গ্রামের মৃত আঞ্জব আলীর পুত্র হেলাল মিয়া, ভোলালাগঞ্জ আদর্শ গুচ্ছগ্রামের মৃত আব্দুর কাদেরের পুত্র দুলাল মিয়া।

 

কিন্তু মামলা ও ঘটনার তিনমাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও এই খুনের মামলার একটি আসামিকেও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে খুনীরা মামলার বাদী রোজিনা ও তার পরিবারকে নানাভাবে হয়রানী করছে। রোজিনা বেগম তার স্বামী হত্যা মামলার সুষ্টু তদন্ত এবং ন্যায় বিচার প্রাপ্তির জন্য সরকার প্রশাসনের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 

ঘটনার পর ন্যায় বিচারের দাবিতে স্থানীয় এলাকাবাসীর উদ্যোগে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের ব্যানের দফায় দফায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব মানববন্ধনের সংবাদ সিলেটের আঞ্চলিক ও জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় ফলাও করে প্রকাশিত হলেও টনক নড়েনি প্রশাসনের। এখনও গ্রেপ্তার করা হয়নি অপরাধীদের। ফলে এলাকার জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। যেকোন সময় স্থানীয়দের সমন্বয়ে বড় আন্দোলনের ডাক আসতে পারে তালা ইঙ্গিত দেন।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর