খাশোগি হত্যার পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই: ট্রাম্প

প্রকাশিত: ৩:১৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৮

খাশোগি হত্যার পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই: ট্রাম্প

ডেস্ক প্রতিবেদন
আগামী দুই দিনের মধ্যেই তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেটে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেয়া হবে বলে জানালেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

স্থানীয় সময় শনিবার ভয়াবহ দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের মালিবু পরিদর্শনের সময় তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান বলে জানিয়েছে কাতার ভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, এই হত্যা সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন আমাদের কাছে আছে। সম্ভবত সোমবার বা মঙ্গলবার এটি প্রকাশ করা হবে। এই হত্যাকাণ্ড কে বা কারা ঘটিয়েছে তা প্রতিবেদনটিতে আছে।

২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি দূতাবাসে বিয়ের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংগ্রহের জন্য প্রবেশ করে নিখোঁজ হন ওয়াশিংটন পোস্টের কলামিস্ট খাশোগি। এরপর তুরস্ক দাবি করে তাকে দূতাবাসের ভেতরে হত্যা করা হয়েছে।

সৌদি আরব প্রথমে অস্বীকার করলেও পরে হত্যার কথা স্বীকার করে। তবে এখনও খাশোগির মৃতদেহের খোঁজ মেলেনি।

এই ঘটনায় সবশেষ যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশেই সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে। যুবরাজ মোহাম্মদের ভাই যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূত খালিদ বিন সালমান ফোন করেছিলেন খাশোগিকে।

আরও বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাসহ সিআইএ এই ফোনকল বিশ্লেষণ করে জেনেছে, খালিদ বিন সালমান খাসোগিকে কনস্যুলেট ভবন থেকে কাগজপত্র আনার জন্য যেতে উৎসাহিত করেছিলেন। সূত্র মতে, খালিদ তার ভাইয়ের নির্দেশে এই ফোনকল করেন।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির ডেপুটি পাবলিক প্রসিকিউটর সালান বিন রাজিহ সালান, যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান নন, একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার নির্দেশ দেন।

তিনি আরও বলেন, উপ-গোয়েন্দা প্রধান জেনারেল আহমেদ আল আসিরি এই গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে ইস্তাম্বুলে পাঠান। তার দায়িত্ব ছিল খাশোগিকে স্বেচ্ছানির্বাসন থেকে সৌদি আরবে ফিরে যেতে বাধ্য করা। সৌদি যুবরাজ এই ব্যাপারে কিছুই জানতেন না।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর