রিকশা চালককে মারধরের জের
গোয়াইনঘাটে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২০ জন আহত : নিয়ন্ত্রণে পুলিশের ফাঁকা গুলি

প্রকাশিত: ৮:৪৪ অপরাহ্ণ, জুন ২৭, ২০২১

<span style='color:#077D05;font-size:19px;'>রিকশা চালককে মারধরের জের</span> <br/> গোয়াইনঘাটে দু’পক্ষের সংঘর্ষে ২০ জন আহত : নিয়ন্ত্রণে পুলিশের ফাঁকা গুলি

নিজস্ব প্রতিবেদক
গোয়াইনঘাট উপজেলায় এক রিকশা চালককে মারধরের সূত্র ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত: ২০ জন আহত হয়েছেন। রবিবার সকালে উপজেলার গোয়াইন বাজার সংলগ্ন স্থানে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে উভয় পক্ষের কয়েক হাজার লোক সংঘর্ষে লিপ্ত হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পুলিশ।

 

আহতরা হলেন- জুয়েল আহমদ, জয়নুল ইসলাম, মঞ্জুর আলম, জাহেদ আহমদ, নাসু মিয়া, রহিম উদ্দিন, কামাল উদ্দিন ও কালা মিয়া সহ অনেকেই। তাৎক্ষণিক আহত সকলের নাম জানাতে পারেনি পুলিশ।

 

স্থানীয়রা জানান, ২৬ জুন (শনিবার) দিবাগত রাত সাড়ে ৮ টার দিকে গোয়াইনঘাট উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নের সতি গ্রামের মনির উদ্দিনের ছেলে রিকশা চালক হারুন রশীদকে গোয়াইন বাজারে পশ্চিম জাফলং ইউনিয়নের গোয়াইন গাঁওয়ের জনৈক ব্যক্তি মারধর করে। মারামারির বিষয়টি রাতে নিষ্পত্তি না করায় সকালে সতি গ্রামের কয়েক শতাধিক লোক দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গোয়াইন গ্রামের পশ্চিম মসজিদ সংলগ্ন এলাকায় উপস্থিত হয়। এই খবরে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে গোয়াইন গ্রামের কয়েক শতাধিক লোক মারামারি প্রস্তুতি নেয়।

 

খবর পেয়ে গোয়াইনঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল আহাদ অর্ধশতাধিক পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সংঘর্ষ থামানোর চেষ্টা করেন। অবস্থা বেগতিক দেখে তিনি ঘটনাস্থলেই সজ্ঞাহীন হয়ে পড়েন। পরে সার্কেল এএসপি প্রবাস কুমার সিংহ’র নেতৃত্বে পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়লে উভয় পক্ষ কিছুটা পিছিয়ে যায়। বর্তমানে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নিজ নিজ এলাকায় অবস্থান করছেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এখনো উত্তেজনা বিরাজ করছে।

 

এব্যাপারে গোয়াইনঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার প্রবাস কুমার সিংহ বলেন, তুচ্ছ একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোয়াইনঘাটের সতি গ্রাম ও গোয়াইন গ্রামের মধ্যে অনাকাঙ্ক্ষিত সংঘর্ষের আশংকা করা হয়েছিলো। তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে অর্ধশতাধিক পুলিশ সদস্য নিয়ে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ। এসময় ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে উভয় পক্ষের সাথ আমি কথা বলেছি। উভয় পক্ষই কিছু সময়ের মধ্যে সালিসের আওতায় চলে আসবে।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর