নগর ভবনে রিকশা শ্রমিকদের হামলা : ভাংচুর

প্রকাশিত: ৪:৪০ অপরাহ্ণ, জুন ২, ২০২১

নগর ভবনে রিকশা শ্রমিকদের হামলা : ভাংচুর

নিজস্ব প্রতিবেদক
সিলেটে সিটি করপোরেশন ভবনে হামলা চালিয়েছে নগরের ব্যাটারি চারিত রিকশা শ্রমিকরা। বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা মিছিল সহকারের নগরের ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। পরে তারা নগর ভবনে প্রবেশ করতে চাইলে ভেতর থেকে মূল ফটক বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতে উত্তেজিত শ্রমিকরা বাহির থেকে নগর ভবনকে লক্ষ্য ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। জবাবে ভেতরে থেকে সিসিক কর্মচারীরাও ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। এসময় বন্দরবাজার এলাকায় গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটায় শ্রমিকরা।

 

এর আগে বুধবার সকালে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে কোর্ট পয়েন্টসহ নগরের কয়েকটি এলাকায় অবৈধ ব্যাটারিচালিত রিকশার বিরুদ্ধে অভিযানে নামে সিসিক। অভিযানে বেশ কয়েকটি ব্যাটারিচালিত রিকশা আটক করা হয়।

 

 

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ব্যাটারিচালিত রিকশা শ্রমিকেরা নগরের চৌহাট্টা থেকে জিন্দাবাজার হয়ে মিছিল নিয়ে নগর ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় মূল ফটকের সামনে তারা মেয়র বিরোধী স্লোগান দেয়। পুলিশ ও নগর কর্মচারীরা তাদের শান্ত রাখার চেষ্টা করলে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়। অবস্থা বেগতিক দেখে ফটকের ভেতরে চলে যান নগর কর্মচারীরা। একপর্যায়ে উত্তেজিত শ্রমিকরা নগরের ভবনে প্রবেশ করতে চাইলে সিসিক’র নিরাপত্তা রক্ষীরা মূল ফটক বন্ধ করে দেয়। পরে বাহির থেকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে শ্রমিকরা। জবাবে তাদের ছোঁড়া ইট সংগ্রহ করে ছুড়তে থাকেন সিসিক কর্মচারীরা। এসময় বন্দরবাজার এলাকায় কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

 

তবে, নগর পিতা আরিফুল হক চৌধুরী নিরাপদে রয়েছেন মর্মে সিসিক কর্মচারীরা জানিয়েছেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

 

এর আগে গেলো ১৭ ফেব্রুয়ারি সিলেট নগরের চৌহাট্টায় সড়কের পাশ দখল করা অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড উচ্ছেদে গেলে সিসিক কর্মচারীদের সাথে সংঘর্ষে জড়ান শ্রমিকরা। প্রায় ঘণ্টাখানেক চলে সংঘর্ষ। ভাংচুর করা হয় গাড়ি। আহত হন উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজনকে। আর অস্ত্রসহ আটক হন একজন। কিন্তু সে সংঘর্ষের প্রায় পাঁচ মাস পার হলেও সড়কের পাশ দখলমুক্ত করতে পারেনি সিসিক।

 

 

এদিকে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আবু ফরহাদ বলেন, ব্যাটারিচালিত রিকশা শহরে চলাচল নিষেধ। কিন্তু এসব রিকশার চালকরা হঠাৎ করে মিছিল নিয়ে সিটি করপোরেশনের ভিতর প্রবেশ করতে চাইলে সিসিকের নিরাপত্তাকর্মীরা বাঁধা দেন। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ তৈরি হয়। এসময় পুলিশ উভয় পক্ষকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বশেষ ২৪ খবর