প্রিসাইডিং অফিসার যাচাইয়ে কমলগঞ্জে পুলিশী তদন্ত শুরু

প্রকাশিত: ৫:০০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০১৮

প্রিসাইডিং অফিসার যাচাইয়ে কমলগঞ্জে পুলিশী তদন্ত শুরু

কমলগঞ্জ সংবাদদাতা
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলে দেশব্যাপি প্রিসাইডিং অফিসার যাচাই বাছাই-এর অংশ হিসেবে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে শুরু হয়েছে পুলিশি তদন্ত। উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে উপজেলার বিভিন্ন বিভাগীয় কর্মকর্তাদের নামের তালিকা সংগ্রহ করার পর রবিবার সকাল থেকে নামের এই তালিকা ধরেই তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখেই আগে থেকেই প্রতিটি কেন্দ্রের জন্য সম্ভাব্য প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারদের তালিকা তৈরী করা হয়। ইতিমধ্যেই উপজেলা প্রশাসনের প্রতিটি বিভাগীয় কর্মকর্তা, সহকারী কর্মকর্তা, শিা প্রতিষ্ঠান প্রধান, ব্যাংক শাখা ব্যবস্থাপকদের নামের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। সংগৃহীত তালিকার কপি থানায় প্রেরণ করা হলে সুষ্ঠু নির্বাচন পরিচালনার নিয়মিত কাজের অংশ হিসেবে তালিকাভুক্তদের সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এজন্য পুলিশ মাঠ পর্যায়ে তদন্ত শুরু করেছে। এমনকি সরাসরি তালিকাভুক্ত সম্ভাব্য প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারদের সাথে কথা বলে তাদের কর্মস্থল, পরিবার সম্পর্কিত তথ্য এমনকি নিজের বাড়ি ও শ্বশুর বাড়ি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করছে পুলিশ।

উপজেলা মাধ্যমিক শিা কর্মকর্তা শামছুন্নাহার পারভীনসহ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন বিভাগীয় কর্মকর্তা জানান, কমলগঞ্জ থানা থেকে একজন উপ-পরিদর্শক মোবাইল ফোনে কথা বলে জেনেছেন তার কর্মস্থল, পারিবারিক অবস্থান, স্বামী-সন্তানাদির তথ্য, এমনকি শ্বশুর বাড়ি সম্পর্কে তথ্য। এব্যাপরে থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, আসন্ন সংসদ নির্বাচনে উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে প্রাপ্ত এ উপজেলায় তালিকাভুক্ত সম্ভাব্য প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারদের তালিকা তদন্ত শুরু করা হয়েছে। এটি একটি রুটিন কাজ। তালিকাভুক্ত অফিসাররা জাতীয় দায়িত্ব পালন করবেন দেশের জন্য। তদন্ত প্রতিবেদন উপজেলা নির্বাচন অফিসে প্রেরণ করলে পরবর্তী কাজটি নির্বাচন অফিস করবে।

কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম তালিকাভুক্ত সম্ভাব্য প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারদের সম্পর্কে পুলিশের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের সত্যতা নিশ্চিত করেন। নির্বাচন অনুষ্ঠানে এটি একটি নিয়মিত কাজ। তদন্ত করে তাদের দতা ও নিরপেতা এবং দায়িত্ব পালন করবেন কি-না তাও জেনে নেওয়া হচ্ছে। এ উপজেলায় এ ধরনের দায়িত্ব পালনে দেড় সহ¯্রাধিক কর্মকর্তা রয়েছেন। তবে কমলগঞ্জ উপজেলায় প্রয়োজন ১১ শত কর্মকর্তা। তালিকাভুক্ত দেড় সহ¯্রধিক কর্মকর্তা থেকে বাছাই করে সরাসরি দায়িত্ব পালনের প্রয়োজনীয় কর্মকর্তা ও সংরতি কিছু কর্মকর্তা বাছাই করা হবে। বাছাই শেষে তাদের প্রশিণ প্রদান করা হবে।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর