বিয়ানীবাজারে পরিত্যক্ত কূপ থেকে দৈনিক ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাওয়ার আশা

প্রকাশিত: ৮:৫০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১০, ২০২২

বিয়ানীবাজারে পরিত্যক্ত কূপ থেকে দৈনিক ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাওয়ার আশা

বিয়ানীবাজার সংবাদদাতা
সিলেটের বিয়ানীবাজার গ্যাসক্ষেত্রের পরিত্যক্ত এক নম্বর কূপের ওয়ার্কওভার (পুনঃখনন) শেষে গ্যাসের মজুত পেয়েছে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি লিমিটেড (বাপেক্স)। বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) সকালে ওই কূপে গ্যাস মজুত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে বাপেক্স। কূপ থেকে শিগগিরই দৈনিক ৭ থেকে ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস ও ১০০ ব্যারেল কনডেনসেট সরবরাহ সম্ভব হবে বলে আশাবাদী রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানিটি।

 

জানা যায়, সিলেট গ্যাস ফিল্ডের বিয়ানীবাজার গ্যাসক্ষেত্রে দুটি কূপ রয়েছে। এরমধ্যে ১ নম্বর কূপ থেকে ১৯৯৯ সালে উৎপাদন শুরু হয়। ২০১৪ সালে তা বন্ধ হয়ে যায়। ফের বিয়ানীবাজার-১ কূপটির ৩ হাজার ৪৫০ মিটার গভীর থেকে ৩৫ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন শেষে ২০১৬ সাল থেকে পরিত্যক্ত ছিল। এরপর ২০১৬ সালের শুরুতে উৎপাদন শুরু হয়ে আবার ওই বছরের শেষদিকে উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় থাকা এই কূপে এই বছরের ১০ সেপ্টেম্বর থেকে আবার খননকাজ শুরু হয়।

 

সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মো. শাহীনুর ইসলাম বলেন, বিয়ানীবাজার-১ কূপটির পরীক্ষামূলক কার্যক্রম বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে। বিয়ানীবাজার-১ কূপটির তিন হাজার ৪৫০ মিটার গভীর থেকে ৩৫ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন শেষে ২০১৬ সাল থেকে পরিত্যক্ত ছিল। দেশে চলমান জ্বালানি সংকটের মধ্যে গত ১০ সেপ্টেম্বর কূপটির পুনঃখনন শুরু করে এসজিএফএল। পরীক্ষা করে কূপে গ্যাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়া গেছে। পরীক্ষামূলক অবস্থায় ১০ মিলিয়ন গ্যাস প্রবাহ দেখা গেছে। গ্যাসের চাপ মিলেছে তিন হাজার ১০০ পিএইচ।

 

তিনি আরও বলেন, কূপটিতে আগামী তিন দিন পরীক্ষা চলবে। পরীক্ষা শেষে এই কূপ থেকে কী পরিমাণ গ্যাস দেওয়া সম্ভব তা নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে, আপাতত মনে হচ্ছে দৈনিক ৭ থেকে ৮ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস এবং প্রায় ১০০ ব্যারেল কনডেনসেট সরবরাহ করা সম্ভব হবে। এসজিএফএলের অধীনে থাকা পরিত্যক্ত গ্যাস কূপগুলোর মধ্যে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চারটি কূপ (কৈলাশটিলা-২, রশীদপুর-২, রশীদপুর-৫ ও হরিপুর-৭) পুনরায় খননের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ২০২৩ সালের শেষের দিকে এই চারটি কূপের খনন শুরু হবে এবং সেখানেও গ্যাস প্রাপ্তির উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

সর্বশেষ ২৪ খবর