২৮ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন করতে হবে : সিইসি

প্রকাশিত: ৪:২৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৮

২৮ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন করতে হবে : সিইসি

ডেস্ক প্রতিবেদন
আর দুই দিন পর অর্থাৎ ৩০ অক্টোবর থেকে নির্বাচনের ণ গণনা শুরু হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। খুলনায় ইভিএম মেলায় তিনি বলেছেন,‘৩০ অক্টোবর থেকে নির্বাচনের ণ গনণা বা কাউন্ট ডাউন শুরু হবে। ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। সে হিসেবে নির্বাচন কমিশন (ইসি) অনুমোদন করলে নভেম্বরে নির্বাচনি তফসিল ঘোষণা করা সম্ভব হতে পারে।’

শনিবার খুলনায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) প্রদর্শনী উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের সামনে তিনি এসব কথা বলেন।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নুরুল হুদা বলেছেন, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আইনের ভিত্তিতে সবার মতামত নিয়ে সীমিত আকারে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণের পরিকল্পনা রয়েছে। এটি জোর করে চাপিয়ে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে কয়েকটি সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে পাইলট আকারে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট নেয়া হয়েছে, যা দতার সাথে সফল হয়েছে। ভোটারদের স্বার্থ রা করবে ইভিএম।

সিইসি বলেন, সরকার, জেলা-উপজেলা পরিষদ, সিটি করপোরেশন এবং ইউনিয়ন পরিষদসহ সকল জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের প্রতিনিধি গঠনের েেত্র প্রধান ভূমিকা পালন করে জনগণ। জনগণের ভোট নিয়েই জনপ্রতিনিধিরা এসব প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন। কিন্তু বিভিন্ন সময় নির্বাচনের শুরু থেকেই নানা অনিয়ম পরিলতি হয়। বিশেষ করে ব্যালট পেপার ছিনতাই, রাতেই ব্যালটে সীল মেরে বাক্স ভর্তি এবং একজনের ভোট অন্যজনে দিয়ে দেয়।

উদাহরণ হিসেবে তিনি কেসিসির সর্বশেষ নির্বাচনে তিনটি কেন্দ্রে উল্লিখিত অনিয়মের বিষয়টি তুলে ধরে বলেন, ইভিএম- এ ভোট হলে এ ধরনের অনিয়মের কোন সুযোগই থাকবে না। উপরন্তু নির্বাচনী ব্যয় এবং লোকবলের তিনভাগের দুই ভাগের প্রয়োজনীয়তা কমে যাবে। মূলত জনপ্রতিনিধিদের ভোটারের ওপরে নির্ভরশীল করতেই ইভিএম পদ্ধতি চালু করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিরোধীতার প্রসঙ্গ এনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, যারা ইভিএমের বিরোধীতা করছেন, তারা আসলে ইভিএম সম্পর্কে না জেনেই করছেন। তিনি তাদেরকে ইভিএম সম্পর্কে ভালো করে ধারণা নেওয়ার অনুরোধ করেন। তবে, সংশ্লিষ্টরা ইভিএমের ত্রুটি বা গ্রহণযোগ্যতার বিষয়ে কোন পরামর্শ দিলে সংশোধনের প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

ইভিএমে অনিয়মনের বিষয়ে তিনি বলেন, ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে যেমন ত্রুটি হয়, কোন কোন েেত্র ইভিএমেও ত্রুটি হতে পারে। আর সেটি হলে অবশ্যই পদপে নেওয়া হবে। কিন্তু প্রযুক্তির এগিয়ে যাওয়ার েেত্র আমাদেরও এগিয়ে যেতে হবে।

  •  

সর্বশেষ ২৪ খবর